হাতকাটা ভুত



BDT176.00
BDT220.00
Save 20%

‘কে ওখানে? কে বাজায়?’ তীক্ষ্ণ শোনাল আমার কণ্ঠ। পিয়ানোটা বাজছে, অথচ বাদককে দেখা যাচ্ছে না। তারপর অস্পষ্ট ধোঁয়ার কুণ্ডলীর মতো গোচরে আসতে শুরু করল ওটা। হালকা ধূসর একটা ছায়া। একটা মেয়ের রূপ নিল ছায়াটা। লম্বা ঝাঁকড়া চুল। সুন্দরী। ঠোঁটে বিষণ² হাসির ছোঁয়া। ‘কে-ক্কে তুমি?’ কোনোমতে জিজ্ঞেস করলাম। ‘এটা আমার বাড়ি, তোমাকে সাবধান করে দিচ্ছি—আমার-পিয়ানোর-কাছ-থেকে-দূরে-থাকবে!’ শুকনো খসখসে গলায় জবাব দিল ও। ধীরে ধীরে ওর মুখটা বদলে যাচ্ছে। বসে যেতে শুরু করেছে গাল দুটো। মোমের গায়ে গরম ধাতব কিছু চেপে ধরলে যেভাবে গলে। পিছিয়ে এসে ভয়ংকর মুখটার দিক থেকে ঘুরে দাঁড়ালাম। ছুটে সরে যাওয়ার চেষ্টা করলাম। কিন্তু পা দুটো বেইমানি করল। 

Quantity


  • Security policy (edit with Customer reassurance module) Security policy (edit with Customer reassurance module)
  • Delivery policy (edit with Customer reassurance module) Delivery policy (edit with Customer reassurance module)
  • Return policy (edit with Customer reassurance module) Return policy (edit with Customer reassurance module)

অনির বাবা নতুন বাসা ভাড়া করেছেন। অনিরা এসেছে সেই নতুন বাড়িতে। সে বাড়ির চিলেকোঠায় পাওয়া গেল একটা পুরোনো পিয়ানো। ঠিক হলো অনি পিয়ানো শিখবে। তার জন্য একজন শিক্ষক হাজির করা হলো। পিয়ানো শেখাটা বেশ মজারই মনে হলো। তবে পিয়ানো টিচার ডেভিড গোমেজকে লাগল অস্বাভাবিক। সমস্যাটা কোথায়, ধরতে পারল না অনি। তারপর শুনল ভয়ংকর ভুতুড়ে গল্পগুলো। ডেভিড গোমেজের মিউজিক স্কুল। ওই স্কুলে যারা বাজনা শিখতে যায়, তারা নাকি আর কোনো দিন ফিরে আসে না। অথচ সেখানেই যেতে বাধ্য করা হলো অনিকে। 

Reviews

No customer reviews for the moment.