চন্দ্রজয়ের ৫০ বছর

লেখক: আবুল বাসার

বিষয়: গণিত, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি

২৪৬.০০ টাকা ১৮% ছাড় ৩০০.০০ টাকা

১৯৬৯ সালের জুলাইয়ে দুঃসাহসিক অভিযানে চাঁদের বুকে প্রথম পা রাখেন নীল আর্মস্ট্রং। একজন মানুষের এই পদক্ষেপকে বিবেচনা করা হয় মানবজাতির বিশাল লাফ হিসেবে (নীলের ভাষায় ‘জায়ান্ট লিফ’)। ২০১৯ সালের জুলাইয়ে মানবজাতির এই ‘বিশাল লাফ’-এর ৫০ বছর পূর্ণ হলো। সে কারণে এই অভিযানের অনেক খঁুটিনাটি ব্যাপার নতুন করে আবারও আলোচনায় এসেছে। জানা গেছে, নতুন আরও অনেক চমকপ্রদ ও রোমাঞ্চকর তথ্য। সেসব নিয়েই সাজানো হয়েছে এই বই। 

পছন্দের তালিকায় রাখুন

বইয়ের বিবরণ

৫০ বছর আগে, ১৯৬৯ সালের জুলাইয়ে অ্যাপোলো ১১ নভোযানে চড়ে চাঁদে দুঃসাহসিক অভিযানে যান মার্কিন নভোচারী নীল আর্মস্ট্রং, বাজ অলড্রিন ও মাইকেল কলিন্স। সেবারই চাঁদের বুকে প্রথম পা রাখেন নীল আর্মস্ট্রং। একজন মানুষের এই পদক্ষেপকে বিবেচনা করা হয় মানবজাতির বিশাল লাফ হিসেবে (নীলের ভাষায় ‘জায়ান্ট লিফ’)। কারণ, সেদিন থেকেই মানুষের রাজত্ব পৃথিবী ছাড়িয়ে চাঁদ পর্যন্ত বিস্তৃত হয়েছিল। সেই সঙ্গে শুরু হয় নতুন এক যুগের। রুশ-মার্কিন ঠান্ডা লড়াইয়ের পরিণতিতে দুই দেশের মহাকাশ প্রতিযোগিতার ফলাফল ছিল এই অর্জন। কিন্তু কথাটুকু যত সহজে বলা গেল, তার অর্জন ততটা সহজ ছিল না। এটুকু অর্জনের জন্য বিশাল এক কর্মযজ্ঞ হাতে নিতে হয়েছিল যুক্তরাষ্ট্রের মহাকাশ গবেষণা সংস্থা নাসাকে। জীবন বাজি রাখতে হয়েছিল সংশ্লিষ্ট নভোচারীদের। ২০১৯ সালের জুলাইয়ে মানবজাতির এই ‘বিশাল লাফ’-এর ৫০ বছর পূর্ণ হলো। সে কারণে এই অভিযানের অনেক খুঁটিনাটি ব্যাপার নতুন করে আবারও আলোচনায় এসেছে। জানা গেছে, নতুন আরও অনেক চমকপ্রদ ও রোমাঞ্চকর তথ্য। সেসব নিয়েই সাজানো হয়েছে এই বই।

আলোর উৎস কিংবা ডিভাইসের কারণে বইয়ের প্রকৃত রং কিংবা পরিধি ভিন্ন হতে পারে।

আবুল বাসার

জন্ম ১৯৭৭, পাবনায়। পড়ালেখা শের-ই-বাংলা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ে। পেশা সাংবাদিকতা। একসময় মাসিক কিশোর আলো সম্পাদনার সঙ্গে জড়িত ছিলেন। বর্তমানে দায়িত্ব পালন করছেন দেশের জনপ্রিয় বিজ্ঞানবিষয়ক মাসিক ম্যাগাজিন বিজ্ঞানচিন্তার নির্বাহী সম্পাদক হিসেবে। এর পাশাপাশি বিজ্ঞানবিষয়ক বেশ কিছু মৌলিক বই লিখেছেন। অনুবাদও করেছেন বিশ্বসেরা কয়েকটি বিজ্ঞানের বইয়ের। ইতিমধ্যে তাত্ত্বিক পদার্থবিদ স্টিফেন হকিংয়ের ছয়টি বই অনুবাদ করেছেন। এর পাঁচটিই প্রকাশ করেছে প্রথমা প্রকাশন। বইগুলো হলো : দ্য থিওরি অব এভরিথিং, মাই ব্রিফ হিস্ট্রি, ব্রিফ আনসারস টু দ্য বিগ কোয়েশ্চেনস (বড় প্রশ্ন, ছোট উত্তর), দ্য ইউনিভার্স ইন আ নাটশেল এবং ব্ল্যাকহোল। অনুবাদ করেছেন পদার্থবিদ মিচিও কাকুর লেখা বেস্টসেলার বই ফিজিকস অব দ্য ইমপসিবল, প্যারালাল ওয়ার্ল্ডস এবং দ্য গড ইকুয়েশন। জ্যোতিঃপদার্থবিদ নীল ডিগ্র্যাস টাইসনের অনূদিত বইগুলোর মধ্যে রয়েছে অ্যাস্ট্রোফিজিকস: সহজ পাঠ। বইগুলো ব্যাপক পাঠক সমাদৃত।

এই লেখকের আরও বই
এই বিষয়ে আরও বই
আলোচনা ও রেটিং
০(০)
  • (০)
  • (০)
  • (০)
  • (০)
  • (০)
আলোচনা/মন্তব্য লিখুন :

আলোচনা/মন্তব্যের জন্য লগ ইন করুন