১৫০.০০ টাকা ২৫% ছাড় ২০০.০০ টাকা

মানবাধিকার অসাধারণ একটি অধিকার। এটি একমাত্র অধিকার, যা প্রত্যেক মানুষের প্রাপ্য। কিন্তু আমরা এর বহু লঙ্ঘন দেখতে পাই। এই লঙ্ঘন ঠেকাতে হলে প্রথমে বুঝতে হবে, মানবাধিকার আসলে কী। জানতে হবে মানবাধিকার লঙ্ঘিত হলে কী করতে হবে বা দেশে প্রতিকার না পেলে আন্তর্জাতিকভাবে এর প্রতিকার পাওয়ার সুযোগ কোথায় আছে। চেনাজানা বহু দৃষ্টান্ত তুলে ধরে মানবাধিকার বিষয়টি সহজ ভাষায় আলোচনা করা হয়েছে এ বইয়ে। 

পছন্দের তালিকায় রাখুন

বইয়ের বিবরণ

একজন মানুষ গ্রেপ্তার হওয়ামাত্র তার তিনটি অধিকার জন্ম নেয়। এ অধিকারগুলো মানবাধিকার, যা লঙ্ঘনের সুযোগ কারও নেই। আরও বহু মানবাধিকার আছে, সে সম্পর্কে হয়তো আমাদের সবার জানা নেই। যেমন সরকারি চাকরিতে সমান সুযোগ লাভ, নির্যাতন বা অবিচারের শিকার না হওয়া, নির্বিঘ্নে ধর্ম পালন করা। অনেক দেশে আবার বিনা খরচে শিক্ষা বা চিকিৎসা লাভ করাও মানবাধিকারের অংশ। মানবাধিকার না পেলে আদালতে যাওয়া যায়। আদালত সরকারকে বাধ্য করেন তা প্রদান করতে। মানবাধিকার লঙ্ঘনের প্রতিকার পাওয়া যায় আন্তর্জাতিকভাবেও। এ সম্পর্কে সবারই জানা দরকার। এ বই মানবাধিকারের সহজপাঠ। এতে মানবাধিকার-সম্পর্কিত ধারণা, দেশের সংবিধান ও আন্তর্জাতিক মানবাধিকার চুক্তিগুলো নিয়ে আলোচনা করা হয়েছে। মানবাধিকার সম্পর্কে প্রয়োজনীয় তথ্যের পাশাপাশি এর নানা দিকেরও বিশ্লেষণ করা হয়েছে সহজ ভাষায়।  

আলোর উৎস কিংবা ডিভাইসের কারণে বইয়ের প্রকৃত রং কিংবা পরিধি ভিন্ন হতে পারে।

আসিফ নজরুল

জন্ম ১৯৬৬ সালে, পুরান ঢাকায়। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আইন বিভাগে ১৯৯১ সাল থেকে শিক্ষকতা করছেন। আন্তর্জাতিক আইনে পিএইচডি করেন লন্ডন থেকে। এরপর জার্মানি ও ইংল্যান্ডে কিছুদিন কাজ করেছেন পোস্টডক্টরাল ফেলো হিসেবে। সাংবাদিক হিসেবে একসময় খ্যাতি অর্জন করেন। বর্তমানে কলামিস্ট ও রাজনৈতিক বিশ্লেষক হিসেবে বহুল পরিচিত। তাঁর প্রথম গল্প ছাপা হয়েছিল প্রায় ৩০ বছর আগে। দীর্ঘ বিরতির পর কয়েক বছর ধরে আবার সৃজনশীল লেখালেখি করছেন । প্রথমা প্রকাশন থেকে প্রকাশিত তাঁর উপন্যাস ‘অসমাপ্তির গল্প’, ‘বেকার দিনের প্রেম’, ‘উধাও’ ও ‘ঘোর’ পাঠকনন্দিত হয়েছে। ২০২০ সালে প্রকাশিত তাঁর ‘মানবাধিকার’ গ্রন্থটিরও হয়েছে একাধিক মুদ্রণ। ‘সংসার’ তাঁর প্রথম গল্পগ্রন্থ।

এই লেখকের আরও বই
এই বিষয়ে আরও বই
আলোচনা ও রেটিং
৫(১)
  • (১)
  • (০)
  • (০)
  • (০)
  • (০)
আলোচনা/মন্তব্য লিখুন :

আলোচনা/মন্তব্যের জন্য লগ ইন করুন

User

০৩ Feb, ২০২৩ - ৫:০৬ PM

বইঃ মানবাধিকার লেখকঃ আসিফ নজরুল প্রকাশকঃপ্রথমা প্রকাশন প্রথম প্রকাশঃঅগ্রহায়ন ১৪২৬(ডিসেম্বর ২০১৯) মুদ্রিত মূল্যঃ২০০ টাকা(মাত্র) "মানবাধিকার"বইটি আসিফ নজরুলের একটি অসাধারণ বই।এই বইটি একজন মানুষকে তার নিজের অধিকার সম্পর্কে সুস্পষ্ট ধারনা প্রদান করে। বইটি পড়ে কি জানতে পারবো? বই মানুষের প্রকৃতবন্ধু,প্রত্যেক মানুষের উচিত বেশি বেশি বই পড়া,এতে যেমন জ্ঞানের ভান্ডার বিকশিত হয়,তেমনি অনেক না জানা বিষয় নিজের অজান্তেই জানা হয়ে যায়। এই বইটি আমাদের সমাজের প্রত্যেক মানুষকে তার নিজের সম্পর্কে, নিজের অধিকার সম্পর্কে সচেতন করে তুলবে অনেকাংশে। আমরা অনেকেই মানবাধিকার সম্পর্কে জানি না,জানি না যে জন্ম থেকে যে সকল অধিকার আমাদের প্রাপ তা কেউ চাইলেই কেরে নিতে পারে না,কেউ জোর করে সেসব অধিকার থেকে আমাদের বঞ্চিত করতে পারে না,এই বইটি পড়লে আমরা সমাজে নিজের অবস্থান, নিজের প্রাপ্য অধিকার সম্পর্কে জানতে পারবো,আরও জানতে পারবো কেউ মানবাধিকারে হস্তক্ষেপ করলে কি কি করনীয়, নিজেকে এবং নিজের অধিকার সম্পর্কে সচেতন হতে মানবাধিকার বইটি পড়া জরুরি। মূলঅংশ আলোচনা মানবাধিকার একটি সর্বজনীন অধিকার। প্রত্যেকটি মানুষের জন্ম থেকে মৃত্যু পর্যন্ত নিজস্ব কিছু অধিকার রয়েছে যার উপর কারো হস্তক্ষেপ করার অধিকার নেই।মানবাধিকার বইটিতে আসিফ নজরুল তার সহজ সরল সাবলিল ভাষাতে মানুষকে তার নিজের অধিকার সম্পর্কে জানাতে চেষ্টা করেছেন।মানবাধিকার প্রত্যেকের নিজেস্ব সম্পদ তার উপর যেমন কেউ হস্তক্ষেপ করতে পারবে না তেমনি কেউ চাইলেও এই অধিকার থেকে কেউকে বঞ্চিত করতেও পারবে না,মানবাধিকার বইটি মূলত কয়েকটি অংশে বিভক্ত। মানবাধিকার বইটি শুরু করেছেন মজাদার একটি প্রশ্ন দিয়ে মানবাধিকার কি? অদৌ কি আমরা জানি যে আসলেই মানবাধিকার কি?কোথা থেকে পাওয়া হয় এই অধিকার বা মানবাধিকারের আমাদের জিবনে ভূমিকা টাই বা কি? আসিফ নজরুল তার সুন্দর লেখনী দ্বারা অনেক গুলো গুরুত্বপূর্ণ অজানা প্রশ্নের উত্তর তুলে ধরেছেন মানবাধিকার বইটির প্রত্যেকটি অংশে। মানবাধিকার অতীতে কেমন ছিল, বর্তমানে কেমন এবং ভবিষ্যতে মানবাধিকারের অবস্থান কেমন হবে তা সম্পর্কেও ধারনা দেবে মানবাধিকার বইটির প্রত্যেকটি পৃষ্ঠা। বাংলাদেশে, বিদেশে এবং আন্তর্জাতিক অঙ্গনে মানবাধিকারের রূপ রেখার একটি চমকপ্রদ দলিল মানবাধিকার বইটি। যা আসিফ নজরুল সকলের জন্য সহজ সরল ভাষার মাধ্যমে আমাদের কাছে পৌঁছে দিয়েছে। বইটি পড়ে আমি কি জেনেছি? মানবাধিকার বইটি পড়ে সমাজে, রাষ্ট্রে আমি আমার নিজের অবস্থান সম্পর্কে জেনেছি, জেনেছি সমাজে যা যা আমার অধিকার তার সম্পর্কে, মানবাধিকার কি ভাবে পেতে পারি বা কেউ আমার মানবাধিকারে হস্তক্ষেপ করলে আমার করনীয় কি? কিছু কথা প্রত্যেক বইয়ের দুইটা দিক থাকে মানবাধিকার বইটিরো রয়েছে, তবে বইটির ভালো দিকটাই বেশি।আমাদের প্রত্যেকের উচিত মানবাধিকার বইটি পড়া,নিজের অধিকার সম্পর্কে জানা।নিজের অবস্থান সম্পর্কে সুস্পষ্ট ধারনা গ্রহন করা প্রত্যেকের জন্য অত্যন্ত জরুরি নিহের জন্য,সমাজের জন্য, দেশ ও দেশের মানুষের জন্য। "প্রথমা ডটকম কথা প্রকাশ বই রিভিউ প্রতিযোগিতা" দিলরুবা