মোহাম্মদ আলীর বাংলাদেশ বিজয়

লেখক: মুহাম্মদ লুৎফুল হক

বিষয়: বাংলাদেশ

২০০.০০ টাকা ২০% ছাড় ২৫০.০০ টাকা

‘বাংলাদেশ সফরে আমি এত মুগ্ধ হয়েছি যে ভাষায় বর্ণনা করার সাধ্য নেই। যেখানেই আমি যাব, এই 

পাসপোর্ট [বাংলাদেশ সরকারের দেওয়া পাসপোর্ট] আমার সঙ্গে থাকবে। আমি এটি নিয়ে গর্ব করব। আমেরিকায় যদি আমার সঙ্গে দুর্ব্যবহার করা হয়, তবে আমি বলব যে আমার সঙ্গে তোমরা যদি ভালো ব্যবহার না করো, তবে আমি বাংলাদেশে চলে যাব।’ 

সংগ্রহে নেই পছন্দের তালিকায় রাখুন

বইয়ের বিবরণ

মুষ্টিযোদ্ধা মোহাম্মদ আলী ছিলেন বিশ্বের সর্বকালের একজন শ্রেষ্ঠ ক্রীড়াবিদ। মুষ্টিযোদ্ধা পরিচয়ের বাইরেও তিনি ছিলেন একজন অভিনেতা, গায়ক, লেখক, কবি, বক্তা, শান্তিবাদী নেতা ও গরিবের বন্ধু। যখন তিনি জনপ্রিয়তার শীর্ষে, সেই ১৯৭৮ সালের ফেব্রুয়ারি মাসে, পাঁচ দিনের সফরে বাংলাদেশে আসেন। ঢাকা ছাড়াও ঘুরে বেড়ান চট্টগ্রাম, কক্সবাজার, সিলেট ও কাপ্তাইয়ে। তখন তাঁকে বাংলাদেশের সাম্মানিক নাগরিকত্ব আর বাংলাদেশের পাসপোর্ট দেওয়া হয়। আমেরিকার শিকাগো শহরে বাংলাদেশের সম্মানিত কনসাল জেনারেল হিসেবেও নিয়োগ দেওয়া হয় তাঁকে। এ সময় মোহাম্মদ আলী গোজ ইস্ট: বাংলাদেশ—আই লাভ ইউ নামক একটি তথ্যচিত্রে তিনি অভিনয় করেন। এ ছাড়া ঢাকায় বাংলাদেশের কিশোর মুষ্টিযোদ্ধা মুহাম্মদ গিয়াসউদ্দিনের সঙ্গে এক প্রদর্শনী মুষ্টিযুদ্ধে অংশ নেন। 

বাংলাদেশে যেখানেই তিনি গেছেন, সেখানে হাজার হাজার মানুষ তাঁকে স্বাগত জানিয়েছে। এ দেশের মানুষের আতিথেয়তায় তিনি এবং তাঁর পরিবার অভিভূত হন। বাংলাদেশের জনগণকে ‘চমৎকার’ ও এ দেশকে ‘স্বর্গ’ বলে উল্লেখ করেন তিনি। কিংবদন্তি মহানায়ক মোহাম্মদ আলীর সপরিবার বাংলাদেশ সফরের বিস্তারিত বর্ণনা রয়েছে এ বইয়ে; যাতে একজন রসিক, সজ্জন ও বাংলাদেশপ্রেমী বিশ্ববিখ্যাত মানুষের জীবন ও ব্যক্তিত্বের নানা দিক উঠে এসেছে। 

আলোর উৎস কিংবা ডিভাইসের কারণে বইয়ের প্রকৃত রং কিংবা পরিধি ভিন্ন হতে পারে।

মুহাম্মদ লুৎফুল হক

জন্ম ১৯৫৫, দিনাজপুরে। ১৯৭৭ সালে বাংলাদেশ সেনাবাহিনীতে কমিশন পান। ২০০৫ সালে লেফটেন্যান্ট কর্নেল হিসেবে অবসর গ্রহণ করেন। প্রকাশিত গবেষণাগ্রন্থ: স্বাধীনতাযুদ্ধের বীরত্বসূচক খেতাব (২০০৬), বাঙালি পল্টন: ব্রিটিশ ভারতের বাঙালি রেজিমেন্ট (২০১২), সৈনিক নজরুল (২০১৩), মোহাম্মদ আলীর বাংলাদেশ বিজয় (২০১৬)। সম্পাদনা: রাজশাহী ১৯৭১ (যৌথ ২০১২), কামালপুর ১৯৭১ (২০১২), দিনাজপুর ১৯৭১ (২০১৩), মুক্তিযুদ্ধে ২ নম্বর সেক্টর এবং কে ফোর্স (২০১৩)।  

এই লেখকের আরও বই
এই বিষয়ে আরও বই
আলোচনা ও রেটিং
০(০)
  • (০)
  • (০)
  • (০)
  • (০)
  • (০)
আলোচনা/মন্তব্য লিখুন :

আলোচনা/মন্তব্যের জন্য লগ ইন করুন