মহাজাগতিক প্রথম আলো : বিগ ব্যাং ও পটভূমি বিকিরণের খোঁজে

লেখক: আবুল বাসার

বিষয়: গণিত, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি, নতুন বই, বিজ্ঞান

৪০০.০০ টাকা ২০% ছাড় ৫০০.০০ টাকা

দুর্ঘটনাক্রমেই গত শতাব্দীর মাঝামাঝি দুই মার্কিন বিজ্ঞানী পেনজিয়াস ও উইলসন আবিষ্কার করেন কসমিক ব্যাকগ্রাউন্ড রেডিয়েশন। একে বলা হয় মহাবিশ্বের প্রথম আলো। মহাবিস্ফোরণ তত্ত্বের সবচেয়ে জোরালো প্রমাণ।  এই আবিষ্কার মোড় ঘুরিয়ে দিয়েছে কসমোলজির। এ বইয়ে তুলে ধরা হয়েছে সেই আবিষ্কার এবং এর সঙ্গে জড়িত একদল বিজ্ঞানীর আপ্রাণ প্রয়াসের প্রায় অনুপুঙ্খ বিবরণ। বস্ত্তত, বহু যুগ ধরে তিলে তিলে গড়ে ওঠা বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির নানা আবিষ্কার এবং সেই সঙ্গে আমাদের মহাবিশ্বেরও বিবরণ তুলে ধরা হয়েছে এ বইয়ে। মহাবিশ্বের রহস্য উদ্ঘাটন করতে চাওয়া অদম্য একদল বিজ্ঞানীর গভীর অনুসন্ধানের কাহিনিও বলা চলে এ বইকে।

পছন্দের তালিকায় রাখুন

বইয়ের বিবরণ

১৯৬৫ সাল। মহাকাশ নিয়ে গবেষণা করছেন যুক্তরাষ্ট্রের বেল ল্যাবসের দুজন বিজ্ঞানী—আর্নো পেনজিয়াস ও রবার্ট উইলসন। কিন্তু একটা রহস্যময় সংকেত তাঁদের কাজে বারবার বাধা সৃষ্টি করছিল। অনেক চেষ্টাতেও সেই একঘেয়ে হিসহিসে সংকেতটা দূর করতে পারলেন না দুই বিজ্ঞানী। বিরক্তি আর হতাশায় মাথার চুল ছেঁড়ার মতো অবস্থা দাঁড়াল তাঁদের। একসময় জানতে পারলেন, অনেক দিন ধরে ঠিক এই সংকেতটাই খুঁজছেন জ্যোতির্বিদেরা। দুর্ঘটনাক্রমে সেটাই আবিষ্কার করে বসেছেন পেনজিয়াস ও উইলসন। সংকেতটাকে বলা হয় কসমিক ব্যাকগ্রাউন্ড রেডিয়েশন বা মহাজাগতিক পটভূমি বিকিরণ, যাকে বলা হয় মহাবিস্ফোরণের ফসিল। মহাবিশ্বের প্রথম আলো। মহাবিস্ফোরণ তত্ত্বের সবচেয়ে জোরালো প্রমাণ।
এই আবিষ্কার বিশ শতকে মোড় ঘুরিয়ে দিয়েছিল জ্যোতির্বিজ্ঞান তথা কসমোলজির। কসমিক ব্যাকগ্রাউন্ড রেডিয়েশনের সেই যুগান্তকারী আবিষ্কার এবং এর সঙ্গে জড়িত একদল বিজ্ঞানীর কাহিনি তুলে ধরা হয়েছে এই বইয়ে। এই বিজ্ঞানীরাই যুগ যুগ ধরে তিলে তিলে গড়ে তুলেছিলেন এর পেছনের বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি। এ বই সেসব আবিষ্কারের কাহিনি, একই সাথে আমাদের মহাবিশ্বের কাহিনিও বটে। মহাবিশ্বের রহস্য উদ্ঘাটন করতে চাওয়া অদম্য একদল বিজ্ঞানীর গভীর অনুসন্ধানের প্রায় অনুপুঙ্খ বিবরণ রয়েছে এ বইয়ে।

  • শিরোনাম মহাজাগতিক প্রথম আলো : বিগ ব্যাং ও পটভূমি বিকিরণের খোঁজে
  • লেখক আবুল বাসার
  • প্রকাশক প্রথমা প্রকাশন
  • মুদ্রণ 1st published 2022
  • দেশ বাংলাদেশ
  • ভাষা বাংলা

আলোর উৎস কিংবা ডিভাইসের কারণে বইয়ের প্রকৃত রং কিংবা পরিধি ভিন্ন হতে পারে।

আবুল বাসার

জন্ম ১৯৭৭, পাবনায়। পড়ালেখা শের-ই-বাংলা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ে। পেশা সাংবাদিকতা। একসময় মাসিক কিশোর আলো সম্পাদনার সঙ্গে জড়িত ছিলেন। বর্তমানে দায়িত্ব পালন করছেন দেশের জনপ্রিয় বিজ্ঞানবিষয়ক মাসিক ম্যাগাজিন বিজ্ঞানচিন্তার নির্বাহী সম্পাদক হিসেবে। এর পাশাপাশি বিজ্ঞানবিষয়ক বেশ কিছু মৌলিক বই লিখেছেন। অনুবাদও করেছেন বিশ্বসেরা কয়েকটি বিজ্ঞানের বইয়ের। ইতিমধ্যে তাত্ত্বিক পদার্থবিদ স্টিফেন হকিংয়ের ছয়টি বই অনুবাদ করেছেন। এর পাঁচটিই প্রকাশ করেছে প্রথমা প্রকাশন। বইগুলো হলো : দ্য থিওরি অব এভরিথিং, মাই ব্রিফ হিস্ট্রি, ব্রিফ আনসারস টু দ্য বিগ কোয়েশ্চেনস (বড় প্রশ্ন, ছোট উত্তর), দ্য ইউনিভার্স ইন আ নাটশেল এবং ব্ল্যাকহোল। অনুবাদ করেছেন পদার্থবিদ মিচিও কাকুর লেখা বেস্টসেলার বই ফিজিকস অব দ্য ইমপসিবল, প্যারালাল ওয়ার্ল্ডস এবং দ্য গড ইকুয়েশন। জ্যোতিঃপদার্থবিদ নীল ডিগ্র্যাস টাইসনের অনূদিত বইগুলোর মধ্যে রয়েছে অ্যাস্ট্রোফিজিকস: সহজ পাঠ। বইগুলো ব্যাপক পাঠক সমাদৃত।

এই লেখকের আরও বই
এই বিষয়ে আরও বই
আলোচনা ও রেটিং
০(০)
  • (০)
  • (০)
  • (০)
  • (০)
  • (০)
আলোচনা/মন্তব্য লিখুন :

আলোচনা/মন্তব্যের জন্য লগ ইন করুন