মুজিযায়ে মুহাম্মদীয়া (স.)

লেখক: বদিউজ্জামান সাঈদ নূরসী

বিষয়: ধর্ম

২৬২.৪০ টাকা ১৮% ছাড় ৩২০.০০ টাকা

বইয়ের বিবরণ

স্বয়ং নবী করীম (সাঃ) তাঁর নবুওয়াতের দৃপ্ত ঘোষণা দিয়েছেন। এর উপর দলীল-প্রমাণ উপস্থাপন করেছেন। সেই সুদৃঢ়তম দলীল হল কোরআনুল কারীম। উল্লেখ্য যে, প্রায় এক হাজারের অধিক সুস্পষ্ট মুজিযা নবী করীম (সাঃ) থেকে প্রকাশিত হয়েছে। যেমনটি মুহাক্কিক তথা যুগশ্রেষ্ঠ তাত্ত্বিক-বিশ্লেষকগণ জানেন। এই সকল মুজিযা অকাট্যরূপে প্রমাণিত। যেমন নবুওয়াতের দাবীর সত্যতা সবার নিকট প্রমাণিত। তবে এক্ষেত্রে একটি কথা উল্লেখ্য যে, কোরআনুল কারীমের বিভিন্ন স্থানে কাফেরদের ভাষায় এই মুজিযাকে যাদু বলে ব্যক্ত করা হয়েছে। এর কারণ হল, কাফেরদের তো মুজিযাকে অস্বীকার করার কোন উপায় নেই এবং মুজিযাকে তারা নিজেরাও প্রত্যাহার করতে পারবে না। তবে যাদুকে তারা অস্বীকার করতে পারবে ও প্রত্যাখ্যান করতে পারবে। তাই নিজেদেরকে ধোঁকায় এবং নিজেদের অনুসারীদেরকে প্রতারণার ফাঁদে ফেলার উদ্দেশ্যে এই মুজিযাকে যাদু বলে চালিয়ে দিয়েছে। হ্যাঁ, রাসূলে আরাবী (সাঃ)-এর মুজিযাসমূহ অকাট্য। শত শত তাওয়াতুরের দৃঢ়তার সমতুল্য। সুতরাং তা অস্বীকার করার কোন পথ নেই। আর মুজিযাসমূহ নিজে নিজেই রাসূলে করীম (সাঃ)-এর নবুওয়াতের দাবীর স্বপক্ষে আল্লাহ্ তাআলার পক্ষ থেকে সত্যায়ন ও সমর্থনস্বরূপ। অর্থাৎ, মুজিযা যেন আল্লাহ্ তাআলার কথা বলার ভিন্ন একটি ভাষা।

আলোর উৎস কিংবা ডিভাইসের কারণে বইয়ের প্রকৃত রং কিংবা পরিধি ভিন্ন হতে পারে।

এই লেখকের আরও বই
এই বিষয়ে আরও বই
আলোচনা ও রেটিং
০(০)
  • (০)
  • (০)
  • (০)
  • (০)
  • (০)
আলোচনা/মন্তব্য লিখুন :

আলোচনা/মন্তব্যের জন্য লগ ইন করুন