২,০৯২.৫০ টাকা ২৫% ছাড় ২,৭৯০.০০ টাকা

রুশ বিপ্লব, স্তালিন-বিতর্ক ও রবীন্দ্রনাথ - আহমদ রফিক – ৩৮০

ইলা মিত্র - মালেকা বেগম – ৪৫০

জহির রায়হান: অনুসন্ধান ও ভালোবাসা - মতিউর রহমান – ৩৫০

রবীন্দ্রনাথ, গীতাঞ্জলি ও দুই হ্যারিয়েট - হাসান ফেরদৌস – ২৮০

একাত্তরের সামাজিক ইতিহাস: প্রত্যক্ষদর্শীর বয়ানে - গওহার নঈম ওয়ারা – ৪৮০

অতীশ দীপঙ্কর রচনাবলি - রায়হান রাইন – ৫০০

নভেরা: শিল্পের রহস্যমানবী - শিকোয়া নাজনীন – ৩৫০

পছন্দের তালিকায় রাখুন

বইয়ের বিবরণ

আলোর উৎস কিংবা ডিভাইসের কারণে বইয়ের প্রকৃত রং কিংবা পরিধি ভিন্ন হতে পারে।

হাসান ফেরদৌস

১৯৮৯ সাল থেকে যুক্তরাষ্ট্রের বাসিন্দা, কাজ করছেন জাতিসংঘের সদর দপ্তরে। ইংরেজি সাহিত্য নিয়ে পড়েছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে, স্নাতকোত্তর ডিগ্রি নিয়েছেন আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিষয়ে ইউক্রেনের কিয়েভ বিশ্ববিদ্যালয় থেকে। ঢাকায় সাংবাদিক হিসেবে বিভিন্ন দায়িত্ব পালন করেছেন দৈনিক সংবাদ, ঢাকা কুরিয়ার ও সচিত্র সন্ধানী পত্রিকায়। কলাম লিখেছেন বাংলাদেশ টাইমস, বাংলাদেশ টুডে, সানডে স্টার, ভোরের কাগজ ও প্রথম আলো পত্রিকায়। নিউইয়র্ক থেকে প্রকাশিত অধুনালুপ্ত ইংরেজি মাসিক ভয়েস অব বাংলাদেশ সম্পাদনা করেছেন কয়েক বছর। প্রকাশিত গ্রন্থ: নান্দনিক নৈতিকতা ও অন্যান্য প্রসঙ্গ, নাগরিক লেখক ও প্রাসঙ্গিক চিন্তা, অন্য সময় অন্য পৃথিবী, ১৯৭১: বন্ধুর মুখ শত্রুর ছায়া, দৃশ্য কাব্য এবং অনেক কথা অল্পকথায়। এ ছাড়া বিদেশি কবিতার অনুবাদ-সংকলন বৃষ্টিকে নিয়ে রূপকথা এবং ছোটদের জন্য অনুবাদগ্রন্থ নক্ষত্র-পুত্র।

আহমদ রফিক

জন্ম ১২ সেপ্টেম্বর ১৯২৯ কুমিল্লার শাহবাজপুরে। ঢাকা মেডিকেল কলেজ থেকে চিকিৎসাবিজ্ঞানে স্নাতক। বায়ান্নর ভাষা আন্দোলনের অন্যতম সংগঠক। প্রাবন্ধিক, কবি ও কথাশিল্পী। উল্লেখযোগ্য প্রবন্ধগ্রন্থ: ভাষা আন্দোলনের স্মৃতি ও কিছু জিজ্ঞাসা, আরেক কালান্তর, রবীন্দ্রভবনে পতিসর, ভাষা আন্দোলন, দেশভাগ: ফিরে দেখা ইত্যাদি। পেয়েছেন বাংলা একাডেমি সাহিত্য পুরস্কার, অগ্রণী ব্যাংক শিশুসাহিত্য পুরস্কার, রাষ্ট্রীয় পুরস্কার একুশে পদক। কলকাতার টেগোর রিসার্চ ইনস্টিটিউট থেকে পেয়েছেন ‘রবীন্দ্রতত্ত্বাচার্য্য’ উপাধি।

মালেকা বেগম

জন্ম ১৯৪৪ সালে। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের বাংলা বিভাগ থেকে স্নাতক ও স্নাতকোত্তর। পরে সমাজবিজ্ঞানেও স্নাতকোত্তর করেছেন। পিএইচডি (২০০৪) করেছেন একই বিশ্ববিদ্যালয় থেকে। কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়ের উইমেন স্টাডিজ সেন্টার থেকে পোস্ট ডক্টরাল (২০১১)। ষাটের দশকের শুরু থেকে নব্বইয়ের দশক পর্যন্ত ছাত্র ও নারী আন্দোলনের সঙ্গে সক্রিয়ভাবে জড়িত ছিলেন। বাংলাদেশ মহিলা পরিষদের প্রতিষ্ঠাতা সাধারণ সম্পাদিকা। মহীয়সী নারী কবি সুফিয়া কামালের সাহচর্যধন্য এই নারীনেত্রী মুক্তিযুদ্ধেরও সক্রিয় সংগঠক। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের জেন্ডার অ্যান্ড উইমেন স্টাডিজ বিভাগের সাবেক সহযোগী অধ্যাপক। বর্তমানে সেন্ট্রাল উইমেন্স ইউনিভার্সিটির সোশিওলজি অ্যান্ড জেন্ডার স্টাডিজ বিভাগের অধ্যাপক ও প্রধান। প্রকাশিত বইয়ের সংখ্যা ২৮।

মতিউর রহমান

জন্ম ২ জানুয়ারি ১৯৪৬। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে পরিসংখ্যানে স্নাতকোত্তর। সম্পাদক ছিলেন সাপ্তাহিক ‘একতা’ (১৯৭০-৯১) ও ‘ভোরের কাগজ’ (১৯৯২-৯৮) পত্রিকার। বর্তমানে ‘প্রথম আলো’র সম্পাদক (১৯৯৮ সাল থেকে)। উল্লেখযোগ্য গ্রন্থ: ‘আকাশভরা সূর্যতারা: কবিতা-গান-শিল্পের ঝরনাধারায়’, ‘ইতিহাসের সত্য সন্ধানে: বিশিষ্টজনদের মুখোমুখি’, ‘মুক্ত গণতন্ত্র রুদ্ধ রাজনীতি: বাংলাদেশ ১৯৯১-২০১৭’, ‘খাপড়া ওয়ার্ড হত্যাকাণ্ড ১৯৫০’। যৌথভাবে লিখেছেন ‘চে: বন্দুকের পাশে কবিতা’, ‘শহীদ নূর হোসেন’। উল্লেখযোগ্য সম্পাদনা: ‘বিদ্রোহী বর্ণমালা’, ‘আলতাফ মাহমুদ: এক ঝড়ের পাখি’, ‘১৫ আগস্ট হত্যাকাণ্ড: কে এম সফিউল্লাহ ও শাফায়াত জামিল বিতর্ক’, ‘জহির রায়হান: অনুসন্ধান ও ভালোবাসা’, ‘স্মৃতিতে অনুভবে আবুল হাসনাত’, ‘বঙ্গবন্ধু: শ্রদ্ধায় ভাবনায় স্মৃতিতে’, ‘শতবর্ষে সুভাষ মুখোপাধ্যায়: বাংলাদেশের শ্রদ্ধাঞ্জলি’, ‘১৯৭১: শত্রু ও মিত্রের কলমে’, ‘বিজয়ের মুহূর্ত ১৯৭১’, ‘সম্মুখযুদ্ধ ১৯৭১: মুক্তিযোদ্ধাদের কলমে’, ‘বাংলাদেশের নায়কেরা’। ফিলিপাইনের ম্যানিলা থেকে ‘সাংবাদিকতা, সাহিত্য ও সৃজনশীল যোগাযোগ’-এ ২০০৫ সালে পেয়েছেন র‍্যামন ম্যাগসাইসাই পুরস্কার।

রায়হান রাইন

জন্ম ৮ মার্চ ১৯৭১, সিরাজগঞ্জে। জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় থেকে দর্শন বিষয়ে স্নাতক (সম্মান) ও স্নাতকোত্তর। এখন জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের দর্শন বিভাগের শিক্ষক। গল্প লেখার শুরু ছাত্রাবস্থায়, নিসর্গ ছোটকাগজে, ১৯৯৬ সালে। অন্যান্য বই—উপন্যাস: আগুন ও ছায়া ; গল্প: আকাশের কৃপাপ্রার্থী তরু, পাতানো মায়ের পাহাড়, স্বপ্নের আমি ও অন্যরা ; কবিতা: তুমি ও সবুজ ঘোড়া, একদিন সুবচনী হাঁস ; অনুবাদ: মনসুর আল-হাল্লাজের কিতাব আল-তাওয়াসিন (২০১০), পাবলো নেরুদার প্রশ্নপুস্তক ; সম্পাদনা: বাংলার ধর্ম ও দর্শন। তাঁর আগুন ও ছায়া উপন্যাসটি ১৪২০ বঙ্গাব্দে ‘প্রথম আলো বর্ষসেরা বই’ হিসেবে পুরস্কৃত হয়।

শিকোয়া নাজনীন

জন্ম ১৯৭৩, ঢাকা। বাবা: মৃত নুরুল ইসলাম, মা: মৃত রোকেয়া বেগম। শিল্পকলার ইতিহাস পড়েছেন ইউনিভার্সিটি অব ব্রিটিশ কলাম্বিয়ায়। পানাম নগরের স্থাপত্যের ঔপনিবেশিক বাংলার শিল্পশৈলীর অন্তর্দৃষ্টিময় দৈশিক পরম্পরা নিয়ে পিএইচডি করেছেন জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে। শিল্পকলার ইতিহাস পড়িয়েছেন চারুকলা অনুষদ, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়, জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় ও ইউনিভার্সিটি অব ডেভেলপমেন্ট অল্টারনেটিভে। পেশা: শিক্ষকতা, গবেষণা। শিল্পকলার ইতিহাস নিয়ে লিখেছেন দেশ-বিদেশের জার্নালে।

এই বিষয়ে আরও বই
আলোচনা ও রেটিং
০(০)
  • (০)
  • (০)
  • (০)
  • (০)
  • (০)
আলোচনা/মন্তব্য লিখুন :

আলোচনা/মন্তব্যের জন্য লগ ইন করুন