জোহানেসবার্গের জার্নাল

লেখক: মঈনুস সুলতান

বিষয়: বিবিধ

২৬৪.০০ টাকা ২০% ছাড় ৩৩০.০০ টাকা

দক্ষিণ আফ্রিকার জোহানেসবার্গ সফরের সরস বিবরণ এ বই। যুদ্ধে গুলি খাওয়া শ্বেতাঙ্গ হেন্ডরিক, তার কৃষ্ণাঙ্গ স্ত্রী ও পুতুলপুত্র আমুকেলানির সংসার, ফুটপাতে গৃহহীন মানুষের ক্লেশ, এইডসে মৃত্যুর কারণে বাচ্চাকাচ্চাসহ গৃহচ্যুত মানুষের দুর্দশার বিবরণ পাঠককে আপ্লুত করবে। বিলাতি কেতার টি-রুমে তরবারি হাতে দাঁড়ানো শিখ সরদারজির নাটকীয় ঘটনা, গান্ধীজির নেতৃত্বে হামিদিয়া মসজিদে সমবেত হিন্দুস্থানিদের বর্ণবাদী পাস পোড়ানোর ইতিকথা, শ্বেতাঙ্গ তরুণী ইহোনিকার গভীর প্রেমোপাখ্যান, জন্মমুহূর্তে মা-বাবার কাছ থেকে বিচ্ছিন্ন কিশোরীর ফিরে আসা ও তার শেষ পরিণতির আন্তরিক বিবরণ এই বইয়ের পাঠককে মঈনুস সুলতানের ভ্রমণগল্পের জগতে আরও একবার নিমজ্জিত করবে। 

সংগ্রহে নেই পছন্দের তালিকায় রাখুন

বইয়ের বিবরণ

জোহানেসবার্গের গেস্টহাউসে বসবাসের ভেতর দিয়ে লেখকের সঙ্গে এক অনিশ্চিত যাত্রায় শরিক হবেন পাঠক। পরিচিত হবেন যুদ্ধে গুলি খাওয়া শ্বেতাঙ্গ পুরুষ হেন্ডরিক, তার টসঙ্গা গোত্রের কৃষ্ণাঙ্গ স্ত্রী মামা কনানানি ও তাদের পুতুলপুত্র আমুকেলানির সঙ্গে। ফুটপাতের কিছু গৃহহীন মানুষের দিনযাপন আর এইডসে মৃত্যুর কারণে বাচ্চাকাচ্চাসহ গৃহচ্যুত কৃষ্ণাঙ্গ পরিবারের ক্লেশ পাঠককে সহানুভূতিশীল করে তুলবে। বিলাতি কেতার টি-রুমে পাঠক দেখতে পাবেন তরবারি হাতে দাঁড়িয়ে এক শিখ সরদারজি। হেয়ার কাটিং সেলুন ও লেডিজ শুর ঘটনাক্রম পাঠককে উদ্বিগ্ন করবে।  কিছু সময়ের জন্য পাঠকও লেখকের সঙ্গে নীরবে দাঁড়াবেন হামিদিয়া মসজিদের সামনে, যেখানে এক জমানায় মহাত্মা গান্ধীর নেতৃত্বে জোহানেসবার্গ শহরের হিন্দুস্থানিরা পুড়িয়ে ফেলেছিলেন বর্ণবাদী পাস। কয়েকটি জুলু যুবক অনুসরণ করে শ্বেতাঙ্গ তরুণী ইহোনিকাকে—তার প্রণয়প্রত্যাশী প্রতিবেশীর আঙিনায় চরে চারটি সিংহ। জন্মমুহূর্তে পিতামাতার কাছ থেকে বিচ্ছিন্ন এক কিশোরীর বাড়ি ফেরা এবং মায়ের সঙ্গে যোগাযোগে ব্যর্থ হয়ে হতাশায় নিমজ্জিত হওয়ার ঘটনাও পাঠককে বর্ণবিভাজন সম্পর্কে ভাবতে বাধ্য করবে। মঈনুস সুলতান রাস্তাঘাট আর পাহাড় পর্বতের ভ্রমণবৃত্তান্ত লেখেন না, তুলে ধরেন বহুবিচিত্র মানুষের অসাধারণ সব গল্প। ভ্রমণগল্পে তার তুলনা নেই। 

আলোর উৎস কিংবা ডিভাইসের কারণে বইয়ের প্রকৃত রং কিংবা পরিধি ভিন্ন হতে পারে।

মঈনুস সুলতান

জন্ম ১৯৫৬ সালে, সিলেট জেলার ফুলবাড়ী গ্রামে। যুক্তরাষ্ট্রের ইউনিভার্সিটি অব ম্যাসাচুসেটস থেকে আন্তর্জাতিক শিক্ষা বিষয়ে পিএইচডি। খণ্ডকালীন অধ্যাপক ছিলেন ইউনিভার্সিটি অব ম্যাসাচুসেটস এবং স্কুল অব হিউম্যান সার্ভিসেস-এর। ইউনিভার্সিটি অব সাউথ আফ্রিকার ভিজিটিং স্কলার ছিলেন। শিক্ষকতা, গবেষণা ও কনসালট্যান্সির কাজে বহু দেশ ভ্রমণ করেছেন। বর্তমানে সিয়েরা লিওনে বাস করছেন। প্রথমা প্রকাশন থেকে বেরিয়েছে তাঁর আরও ছয়টি ভ্রমণগল্পের বই কাবুলের ক্যারাভান সরাই, জিম্বাবুয়ে: বোবা পাথর সালানিনি, নিকারাগুয়া: সমোটো ক্যানিয়নে গাবরিয়েলা, সোয়াজিল্যান্ড: রাজা প্রজা পর্যটক, ঈদের সোনালি ইগল ও আকাশরাজ্য । প্রথম আলো বর্ষসেরা বইয়ের পুরস্কার ও বাংলা একাডেমি পুরস্কার পেয়েছেন।

এই লেখকের আরও বই
এই বিষয়ে আরও বই
আলোচনা ও রেটিং
০(০)
  • (০)
  • (০)
  • (০)
  • (০)
  • (০)
আলোচনা/মন্তব্য লিখুন :

আলোচনা/মন্তব্যের জন্য লগ ইন করুন