রম্য কথায় গ্রিক পুরাণ

লেখক: তাবাসসুম নাজ

বিষয়: রম্যরচনা, সমাজ, ইতিহাস ও সংস্কৃতি

২৮১.২৫ টাকা ২৫% ছাড় ৩৭৫.০০ টাকা

বইয়ের বিবরণ

"রম্য কথায় গ্রিক পুরাণ" বইটির সম্পর্কে কিছু কথা:
মিথ কিংবা পুরাণকে বলা হয় চৈতন্যের প্রাচীনতম প্রকৃতি ও রূপ। পৌরাণিক কাহিনি, চরিত্রের প্রতি মানুষের আগ্রহ এবং জানার প্রবল আকাঙ্ক্ষা সব সময়ই লক্ষ করার মতাে। আদিম মানুষের জীবন ও সংস্কৃতির বিশাল এক অংশজুড়েও ছিল পুরাণকেন্দ্রিক মৌখিক সাহিত্যচর্চা। এই সাহিত্য থেকেই ক্রমে বিশ্বব্যাপী নাটক, কাব্য প্রভৃতি ধারার সাহিত্যচর্চার শুরু হয়েছিল। প্রাচীন গ্রিক কিংবা সংস্কৃত নাটক যাই বলা হােক না কেন—সর্বক্ষেত্রে দেবদেবীর প্রাধান্যই ছিল গুরুত্বপূর্ণ। আদিরসাত্মক নানা ঘটনার সম্মিলন থাকায়ও পুরাণের প্রতি মানুষের আগ্রহ থাকার বিশেষ কারণ আছে বৈকি! তদুপরিও পৌরাণিক কাহিনি থেকে তৎকালীন সমাজ-সভ্যতা-সংস্কৃতির পরিচয় লাভ করা যায়। | গ্রিক পুরাণে বিদ্যমান দেবদেবীদের কূটচাল, যুদ্ধ-বিগ্রহ, নিগ্রহ, হাস্যকৌতুক, যৌনউদ্ভটতা প্রভৃতির কারণে কখনাে কখনাে মানুষ প্রাচীন মানুষের কল্পনা ও সৃজনশীলতাকে মূল্যায়ন করতে ব্যর্থ হয়। তবু বিশ্বব্যাপী মিথের চর্চা আজ অপরিহার্য এবং গুরুত্বপূর্ণ বিষয়রূপে আবির্ভূত হয়েছে। তাবাসসুম নাজও সেই চর্চারই ধারাবাহিকতা রক্ষা করে গেছেন। তিনি বাঙালির চিরায়ত হাস্যরসের ধারায় গ্রিক পুরাণকে এই গ্রন্থে তুলে ধরার প্রয়াস পান। ফলে তাবাসসুম নাজও আদিকালের লেখকগণের মতােই গ্রিক দেবদেবীদের মানুষের আদলেই পুনর্নির্মাণ করেন। তারপরও পুরাণ কিংবা মিথের শক্তিকে অনুধাবন করতে কষ্ট হয়। বরং পুনরায় পুরাণের শক্তিই উদ্ভাসিত হয়ে ওঠে। আশা করি পাঠক, তাবাসসুম নাজের ‘রম্য কথায় গ্রিক পুরাণ’ বইটিকে সাদরেই গ্রহণ করবে।

আলোর উৎস কিংবা ডিভাইসের কারণে বইয়ের প্রকৃত রং কিংবা পরিধি ভিন্ন হতে পারে।

এই লেখকের আরও বই
এই বিষয়ে আরও বই
আলোচনা ও রেটিং
০(০)
  • (০)
  • (০)
  • (০)
  • (০)
  • (০)
আলোচনা/মন্তব্য লিখুন :

আলোচনা/মন্তব্যের জন্য লগ ইন করুন